যার কারিশমায় কক্সবাজার সদর আসনে নৌকার পালে হাওয়া!!

বিশেষ প্রতিবেদক: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয়ের অভিনব উন্নয়নমূলক প্রচারণায় নৌকার পালে হাওয়া বইছে। এমনকি শোনা যাচ্ছে এবার নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পাবার সম্ভাবনাও তার বেশি।
ফলে ইশতিয়াক আহমেদ জয়েই পাচ্ছেন আওয়ামী লীগের টিকেট এমন ইংগিত স্বয়ং কেন্দ্রীয় নেতাদের বলে জানা যায়।
এ আসনের আওতাধীন সদর, রামু, খুরুশকুল,চৌফলদন্ডি এলাকা গুলো সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, তৃণমূলের নেতাকর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ মনোনয়নে জয়ের নামেই বেশি ধরছেন গ্রামের মুরুব্বি থেকে তরুণেরা। তারুণ্যের প্রতীক জয়কেই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের এমপি প্রার্থী হিসেবে দেখতে চান তারা।
সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমান সময়ের শ্রেষ্ঠ ছাত্রলীগের ইউনিট কক্সবাজারেই। যা জয়ের হাতে গড়া সৃষ্টি। জেলায় বরাবরেই মাদক ও ঘুষ বানিজ্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন তিনি। এমনকি রোহিঙ্গাদের চিকিৎসা ক্যাম্প,মাদক বিরোধী সেমিনার,বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ,ইভটিজিং প্রতিরোধ, স্বেচ্ছায় সমুদ্র সৈকত পরিচ্ছদ অভিযান, জঙ্গিবাদ বিরোধী সভা সমাবেশ, জামাত বিএনপির আন্দোলন মোকাবেলায় প্রসংশনীয় ভূমিকা তার।
তবে পুরা জেলায় সবচেয়ে বেশি আলোড়ন তুলেছে বর্তমান সরকার তথা “শেখ হাসিনার উন্নয়নের গল্প” শীর্ষক প্রচারণা। যা ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় নেতাদের মুখে মুখে প্রশংসার বানী ফুটিয়েছে।
ছাত্রলীগকে ভালোবেসে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে আওয়ামী লীগের তৃণমূলকে দীর্ঘদিন ধরেই এক ছাতার নিচে একত্রিত করতে নীরব ভূমিকা যার অতুলনীয়। বহু সামাজিক কর্মকা-ে তার নেতৃত্বে সরকারের সুনাম ধরে রেখেছে কক্সবাজারে। যে প্রশংসা করেছেন স্বয়ং দলের সেক্রেটারি জেনারেল সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি।
এমনকি পুরো শহর ও গ্রাম জুড়েই বিভিন্ন সময়ে দলীয়, সামাজিক এবং ধর্মীয় অনুষ্ঠানের পোস্টার ব্যানারে শুধু ইশতিয়াক আহমেদ জয়কেই দেখা গেছে। সম্প্রতি হিন্দুদের দুর্গ পুজা উৎসবে পুজামন্ডপ পরিদর্শন করে আর্থিক সাহায্য সহযোগিতাও করে নজরে এসেছেন।
সদ্য অনুষ্ঠিত কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে যার কারিশমায় বিএনপি জামাত প্রার্থীরা ব্যর্থ হন।
এ ছাড়া সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতীম দলের বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও তার সরব উপস্থিতি রয়েছে। ফলে সাধারণ মানুষের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন সদর আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইশতিয়াক আহমেদ জয়।
এবিষয়ে এলাকাবাসীর মন্তব্য, তিনি অত্যন্ত সাহসী, কর্মীপ্রেমিক, নৌকার গণমুখী চরিত্র নিয়ে কাজ করছেন মাঠে দীর্ঘদিন। তার কাছে সবাই যেতে পারেন। এমনকি তার কাছে গিয়ে কেউ কোনোদিন খালি হাতে ফিরে আসেনি।
এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, কক্সবাজার আওয়ামী লীগের এক উদীয়মান সংগঠকের নাম ইশতিয়াক আহমেদ জয়।
স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানান, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর বদলে যেতে থাকে কক্সবাজারের মাঠের রাজনীতি। তৃণমূলের রাজনীতিতে পালে হাওয়া ফিরে পায় নৌকা ও আওয়ামী লীগে।
যে কারণে ২০১২ ও ২০১৪ সালে ২০ দলীয় জোটের রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে নাশকতা চলাকালে মাঠে দাঁড়াতে পারেনি জামায়াত সমর্থিত ওই জোটের কোন নেতাকর্মীরা।
আওয়ামী লীগের দুর্দিনে হাল ধরা এই তরুণ নেতৃত্বই এখন হয়ে উঠেছেন কক্সবাজার-৩ আসনের আওয়ামী লীগের কা-ারি।
তৃণমূলের জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে কক্সবাজান-৩ আসনে ইশতিয়াক আহমেদ জয়কে মনোনয়ন দেয়া হলে বিপুল ভোটে জয়ী হবে তৃণমূল নেতাকর্মীরা আশাবাদী।
এ বিষয়ে ইশতিয়াক আহমেদ জয় বলেন, ‘আমার শক্তি এই জনপদের তারুণ্য আমার শক্তি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের গল্পের ফেরিওয়ালা বলে আগামীতে নৌকার মনোনয়ন চাই।’

Please follow and like us:
comments

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *